থাইল্যান্ডে জরুরি অবস্থায় বিক্ষোভ, কারফিউ জারির হুঁশিয়ারি!

থাইল্যান্ডে জরুরি অবস্থায় বিক্ষোভ, কারফিউ জারির হুঁশিয়ারি!
থাইল্যান্ডে জরুরি অবস্থায় বিক্ষোভ, কারফিউ জারির হুঁশিয়ারি!

প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে শুক্রবার সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা ও জরুরি অবস্থা উপেক্ষা করেই রাস্তায় নামেন থাইল্যান্ডের মানুষ। প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান ওচার পদত্যাগ, সংবিধান সংশোধন ও রাজতন্ত্র পুনর্গঠনের দাবি জানান তারা।

আন্দোলন দমাতে কয়েক হাজার দাঙ্গা পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এদিন বিক্ষোভকারীদের মুখোমুখি অবস্থান নিলে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়। এক পর্যায়ে আন্দোলনকারীদের ওপর জলকামান ব্যবহার করে পুলিশ। জলকামানের মধ্যেই আন্দোলনের প্রতীক হয়ে ওঠা তিন আঙ্গুল স্যালুট দিয়ে প্রতিবাদ জানান বিক্ষোভকারীরা।

সরকারবিরোধী আন্দোলনের নেতাদের গ্রেফতার ও পুলিশি নির্যাতনের প্রতিবাদে রাতেই র‌্যালি করেন বিক্ষোভকারীরা। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন তারা।

এক বিক্ষোভকারী জানান, আমাদের ওপর অনেক অন্যায় করা হয়েছে আর নয়। এই সরকার ব্যর্থ। আমরা স্কুলের ক্লাস বাদ দিয়ে আন্দোলনে অংশ নিয়েছি।

তীব্র আন্দোলনের মুখেও পদ ছাড়বেন না বলে সাফ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান ওচা। বরং আন্দোলনকারীদের ওপর আরো কঠোর হওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। একইসঙ্গে কারফিউ জারিরও হুমকি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY